Categories
সমগ্র বাংলা

কুমিল্লায় শেকল বাঁধা অবস্থায় অপহৃত ব্যক্তি উদ্ধার

কুমিল্লায় অপহৃত এক ব্যক্তিকে শেকলে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপহরণের দুই ঘণ্টার মধ্যে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ নাটকীয় কায়দায় নগরীর নেউড়া এলাকার একটি ছয়তলা ভবনের নিচতলা হতে শেকল বাধা অবস্থায় ভিকটিম আজাদ হোসেনকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জামাল মিয়া নামে এক অপহরণকারীকে আটক করা হয়।

রবিবার সন্ধ্যায় প্রেসব্রিফিং করে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান কুমিল্লা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-এ সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন।

শনিবার জেলার আদর্শ সদর উপজেলার দৌলতপুর এলাকা হতে ভিকটিমকে অপহরণ করা হয়েছিল। এ ঘটনায় ভিকটিমের স্ত্রী মোর্শেদা বেগম বাদী হয়ে রাত ৮টার দিকে ৪ জনকে আসামি করে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমন সাংবাদিকদের জানান, গত শনিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে আদর্শ সদর উপজেলার দৌলতপুর এলাকার আবদুর রশিদের ছেলে আজাদ হোসেন (৪৫) বাড়ি হতে বের হয়ে তার বোনের বাড়ি পার্শ্ববর্তী সদর দক্ষিণ উপজেলার রাজারখোলা গ্রামে যাচ্ছিলেন।

পথিমধ্যে দৌলতপুর এলাকার চিশতিয়া জুট মিলের সামনে গেলে সেখানে সাদা রংয়ের একটি প্রাইভেট কারে চারজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি তার গতি রোধ করে এবং ডিবি পুলিশ পরিচয়ে গামছা দিয়ে চোখ বেঁধে গাড়িতে করে তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরে সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে অপহরণকারীরা আজাদ হোসেনের মেয়ে রিয়া আক্তারের মোবাইলে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে নগরীর নেউড়া এলাকায় যেতে বলে এবং তার বাবার সঙ্গে কথা বলিয়ে দেয়। রাত পৌনে ৯টার দিকে ভিকটিমের মেয়ে রিয়া আক্তার বিষয়টি কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশকে জানায়।

তিনি আরো জানান, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় অপহরণকারীদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামের নির্দেশে পুলিশের ২টি টিম ভিকটিমের মেয়ে রিয়াকে সঙ্গে নিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। অভিযানের একপর্যায়ে ভিকটিম আজাদ হোসেনকে নগরীর নেউড়া ইকো পার্কের পাশের একটি ছয়তলা ভবনের নিচ তলা হতে শেকল বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তিনজন অপহরণকারী পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল হতে জামাল মিয়া নামে এক অপহরণকারীকে আটক করা হয়। আটক জামাল মিয়া জেলার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের বারেশ্বর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে। সে নগরীর নেউড়া এলাকায় জনৈক জহিরুল ইসলামের বাড়িতে ভাড়া থাকতো।

ভিকটিম আজাদ হোসেন জানান, মূলত তাকে জিম্মি করে তার মেয়ে রিয়া আক্তারকে ধর্ষণের উদ্দেশে অপহরণকারীরা এই ঘটনা সৃষ্টি করে এবং এ বিষয়ে তারা পারস্পরিক আলোচনা করছিল। পুলিশের সহায়তায় আমি উদ্ধার হয়েছি এবং আমার মেয়ে একটি বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে।

কোতয়ালী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সালাহউদ্দিন জানান, এ ঘটনায় ভিকটিম আজাদ হোসেনের স্ত্রী মোরশেদা বেগম বাদী হয়ে রবিবার রাত ৮টার দিকে চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে।

Categories
সমগ্র বাংলা

চৌমুহনীর মার্কেটে ভয়াবহ আগুন

নোয়াখালীর প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র চৌমুহনী বাজারে রবিবার সন্ধ্যায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। প্রায় দু’ঘন্টার চেষ্টায় ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রনে আনলেও পুড়ে গেছে রেল ষ্টেশনের পূর্ব পাশে অবস্থিত ইসলামীয়া মার্কেটের অন্তত ৪০টি দোকান। আগুনের কারন ও ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে ইসলামিয়া মার্কেটে আগুনের সূত্রপাত। আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। প্রথম পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন ও ব্যবসায়ীরা চেষ্টা করে আগুনের বিস্তার থামাতে ব্যর্থ হন। মার্কেটের প্রায় সকল দোকানে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষীপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের দশটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌছে। সরুরাস্তা হওয়ার কারনে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে বেগ পায়। এছাড়াও আশেপাশে জলাধার না থাকায় পানি সংগ্রহে বিলম্ব হয়। তারপরও ফায়ার কর্মীদের প্রানান্তকর চেষ্টায় দুই ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে।

ব্যবসায়ীরা জানান, মার্কেটে সিরামিক, কোকারিজ, বৈদ্যুতিক সামগ্রী, বই, ষ্টেশনারী ও সেনিটারীর দোকান ছিল। এর আগে মার্কেটে দুবার আগুন লেগেছিল। এবারের আগুনে নূন্যতম ৫০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বৈদ্যুতিক সট সার্কিট অথবা গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে ব্যবসায়ীরা ধারনা দেন।

নোয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক তৌফিকুল এলাহী ভূইয়া জানান, আগুনের খবর পেয়ে মাইজদী, চৌমুহনী, সোনাইমুড়ী, লক্ষীপুর ও ফেনীর ১০টি ইউনিট পৌছে। রাত সাড়ে ৮টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ও অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে এ মূহূর্তে কিছু বলা যাচ্ছে না।

আগুনের খবর পেয়ে নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক তন্ময় দাসসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

Categories
Uncategorized

Hello world!

Welcome to WordPress. This is your first post. Edit or delete it, then start writing!