করোনা: বাংলাদেশসহ কয়েকটি দেশের সর্বশেষ পরিস্থতি

ফিচার সমগ্র বাংলা

করোনাভাইরাসে ফ্রান্সে মৃতের সংখ্যা ২৬ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে গত ১৫ দিন থেকে ক্রমান্বয়ে পরিস্থিতি উন্নতির দিকেই যাচ্ছে। আগামী সোমবার থেকে শর্ত আরোপ করে লকডাউন তুলে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ফ্রান্সে ২৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে সর্বমোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৬ হাজার ২৩০ জন। নতুন আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ২৮৮ জন। এ নিয়ে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো এক লাখ ৭৬ হাজার ৭৯ জন। ইতোমধ্যে ৫৫ হাজারেরও বেশি রোগী সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন।

এদিকে আগামী সোমবার থেকে লকডাউন তুলে নেয়ার রূপরেখা দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী অ্যাডওয়ার্ড ফিলিপ। লকডাউন তুলে নেয়া হলেও আপাতত আগের মতো স্বাভাবিক চলাফেরা করার সুযোগ থাকছে না।

এদিকে ফ্রান্সের বিশ্ববিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় Sorbonne এবং Inserm দ্বারা পরিচালিত গবেষণায় বলা হয়েছে, ৮ জুনের আগে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ঠিক হবে না। এছাড়া বাসার মধ্যেও দূরত্ব বজায় রাখার পক্ষে তারা মত দিয়েছেন।

আর্জেন্টিনা
করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত ২০ মার্চ থেকে লকডাউনে রয়েছে আর্জেন্টিনা। আগামী রোববার শেষ হচ্ছে পূর্বঘোষিত এই নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা। এরপর থেকে দেশটির রাজধানী বাদে বাকি সবখানেই কড়াকড়ি শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছে আর্জেন্টাইন সরকার।

আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট জানান, সরকারের দেয়া কোয়ারেন্টাইন নির্দেশনা মেনে চলায় তিনি জনগণকে নিয়ে ‘খুবই গর্বিত’। তাদের কারণেই করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুহার কমানো সম্ভব হয়েছে।

পাকিস্তান
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী যেদিন লকডাউন প্রত্যাহারের ঘোষণা দিলেন সেদিন সর্বোচ্চ কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল শনিবার থেকে লকডাউন প্রত্যাহারের নির্দেশনা কার্যকর হবে। অথচ আজ শুক্রবার দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড হয়েছে।

সিএনএন এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় পাকিস্তানে নতুন করে ১ হাজার ৭৬৪ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মহামারি নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হলেন ২৫ হাজার ৮৩৭ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ৫৯৪ জন মারা গেছেন।

জাতির উদ্দেশে দেয়া ওই ভাষণে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, লকডাউন প্রত্যাহারের এই সিদ্ধান্ত নেয়ার কারণ হলো; দেশের বিপুল সংখ্যক দারিদ্র জনগোষ্ঠী ও দিনমজুর মানুষ লকডাউনের কারণে তাদের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতে পারছেন না।

তিনি অবশ্য বলেছেন, ‘আমরা লকডাউন এখনই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা জানি এই সিদ্ধান্ত এমন এক সময় নিতে হলো যখন ভাইরাসটির সংক্রমণের গতি ঊর্ধ্বমুখী। তবে আমরা যেরকম প্রত্যাশা করেছিলাম, পরিস্থিতি তেমন হচ্ছে না। তাই এমন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি।’

লেবানন
করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে লকডাউন চলছে লেবাননে। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ১৫ মার্চ থেকে সব মসজিদ বন্ধ ঘোষণা করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। তবে সম্প্রতি এ নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করেছে কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার থেকে লেবাননের মসজিদগুলোতে ফের শুরু হয়েছে জুমার নামাজ।

গত বুধবার লেবাননের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা দেন, লকডাউন শিথিল করায় এখন থেকে দেশটির সব মসজিদে জুমার নামাজ ও রোববার চার্চগুলোতে প্রার্থনা করা যাবে। তবে ধারণক্ষমতার ৩০ শতাংশের বেশি লোক প্রবেশ করতে পারবে না এবং প্রার্থনার সময় পর্যাপ্ত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

বাংলাদেশ
৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে এখন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এ সংখ্যা। লম্বা হচ্ছে মৃত্যুর মিছিলও।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সারাদেশে চলছে ছুটি। বন্ধ বাস, ট্রেন, লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহন। কিন্তু সম্প্রতি ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-গাজীপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় পোশাক কারখানা খুলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া আগামীকাল রোববার (১০ মে) থেকে শর্তসাপেক্ষে শপিংমল খোলা রাখার সিদ্ধান্তও হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (৭ মে) থেকে শর্তসাপেক্ষে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতে আদায়ে সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে মসজিদও।

শনিবার (৯ মে) এ ঘোষণা অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে বাংলাদেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২১৪-এ। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৬৩৬ জন। ফলে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৩ হাজার ৭৭০।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *